Updates

Home » স্বাস্থ্য » কিছু স্বাস্থ্য উপকারী ফলের বীজ

আপনি কি কখনো তরমুজ বা লেবুর বীজ খাওয়ার কথা চিন্তা করেছেন?

এ বীচিগুলো ছুড়ে ফেলে দেয়াই স্বাভাবিক, কিন্তু এই বীচিগুলো ছুড়ে ফেলে দেয়ার সাথে সাথে আপনি কিছু পুষ্টি উপাদানও ছুড়ে ফেলে দিচ্ছেন। কিছু ফলের বীচি বিষাক্ত নয় এবং এগুলো খেলে আপনার পাকস্থলীতে কোন গাছও জন্মাবেনা, তাই নিশ্চিন্তেই এদের খাওয়া যায়। আসলে কিছু ফলের বীচিতে উপকারি এমাইনো এসিড, ভিটামিন ও মিনারেল থাকে। এমন কয়েকটি ফলের বীজের কথাই আজ জেনে নিই চলুন যা খেলে স্বাস্থ্যের উন্নতি হয় এবং ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।
১. তরমুজের বীচিঃ
তরমুজের বীচি অনেক বেশি পুষ্টিকর একটি খাবার যা খেলে আপনার চুল, নখ ও ত্বক উজ্জ্বল হয়। স্বাস্থ্যকর ওলেইক ও লিনোলিয়াম এসিডের চমৎকার উৎস হচ্ছে তরমুজের বীচি। তরমুজের বীচিতে জিংক, ফাইবার ও আয়রন থাকে। জিংক বিভিন্ন ধরণের এনজাইম পরিচালনার জন্য এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার জন্য প্রয়োজনীয়। দুর্ভাগ্যবশত এই পুষ্টি উপাদানটি দীর্ঘদিন শরীরে জমা থাকেনা। তাই আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় জিংক সমৃদ্ধ খাবার রাখুন। তরমুজের বীচিতে উচ্চমাত্রার অ্যামাইনো এসিড আরজিনিন থাকে। যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে এবং করোনারি হার্ট ডিজিজ নিরাময়ে সাহায্য করে। তরমুজের বীচি উচ্চমাত্রার ভিটামিন বি, নায়াসিন এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ।
২. লেবুর বীচিঃ
সকল ধরণের সাইট্রাস ফলের বীচিই নিরাপদ। তাই কমলা বা আঙ্গুর খাওয়ার সময় বীচিতে কামড় পড়লে বা জুসের সাথে খেলে কোন সমস্যা নাই। লেবুর বীচিতে স্যালিসাইলিক এসিড থাকে যা অ্যাসপিরিনের প্রধান উপাদান। তাই কয়েকটি লেবুর বীচি খেয়ে ফেললে কোন ক্ষতি নাই বরং এরা আপনাকে বেদনানাশক উপকারিতাই দিবে।
৩. পেঁপের বীচিঃ
গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলে যারা বাস করেন তাদের দেহে পরজীবীর সংক্রমণ প্রতিরোধের জন্য পেঁপের বীচি উপকারি। পেঁপের বীচিতে প্রোটিওলাইটিক এনজাইম, পেপেইন শরীরকে প্যারাসাইট মুক্ত করে। এছাড়াও পেঁপের বীচিতে এন্থেলমিন্টিক উপক্ষার কারপেইন থাকে। যা পরজীবী ক্রিমি ও অ্যামিবা ধ্বংস করতে সাহায্য করে। পেঁপের বীচিতে উপকারি গ্লুকোট্রোপিওলিন থাকে যা শরীরে বিপাকের মাধ্যমে শক্তিশালী ক্যান্সার বিরোধী উপাদান আইসোথায়োসায়ানেট উৎপন্ন করে।
৪. কিউইর বীচিঃ
কিউই ফলের কালো বীচি ভিটামিন ই এবং ওমেগা৩ ফ্যাটি এসিডের চমৎকার উৎস। এই পুষ্টি উপাদানগুলো যথেষ্ট পরিমাণে গ্রহণ করলে কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ হয় এবং উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।
৫. কালোজামের বীচিঃ
কালোজামের বীচিতে ওমেগা৩ ও ওমেগা৬ ফ্যাটি এসিড থাকে। এছাড়াও ফাইবার, ক্যারোটিনয়েড এবং প্রোটিন থাকে। কালোজামের বীচিতে পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।
৬. অ্যাভোকাডোর বীচিঃ
অ্যাভোকাডোর বীচিতে উচ্চমাত্রার দ্রবণীয় ফাইবার ও অ্যান্টিওক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। পটাসিয়ামের ভালো উৎস অ্যাভোকাডোর বীচি। অ্যাভোকাডোর বীচির উচ্চমাত্রার ফেনোলিক অ্যান্টিওক্সিডেন্ট হাই ব্লাড প্রেশার ও হাই কোলেস্টেরল কমায় এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

কুমড়োর বীচ

চিয়া বীজ গুঁড়া বিস্তারিত

পণ্যের নাম: চিয়া বীজ পাউডার

মূল স্থান: চীন

ল্যাটিন নাম: সালভিয়া Hispanica এল।

ব্যবহৃত অংশ: বীজ

শুকনো পদ্ধতি: শুকিয়ে তুষারপাত

মেষ আকার: 60-120 মেষ

চেহারা: আলগা পাউডার, কোন lumps, কোন দৃশ্যমান অমেধ্য।

রঙ: হলুদ বাদামী

গন্ধ: প্রাকৃতিক তাজা চিয়া বীজ গন্ধ

আর্দ্রতা: ≤5%

মাইক্রোবাইল গণনা: ≤1000

চেঁচানো এবং ছাঁচ: ≤50

ই কোলি: নেতিবাচক

সালমোনেলা: নেতিবাচক

চিয়া বীজ পাউডার কি?

চিয়া 1 বার (3.3 ফুট) লম্বা পর্যন্ত একটি বার্ষিক মৃত্তিকা যা 4-8 সেন্টিমিটার (1.6-3.1 ইঞ্চি) লম্বা এবং 3-5 সেন্টিমিটার (1.2-2.0 ইঞ্চি) চওড়া বিপরীত পাতাগুলির সাথে বেড়ে যায়। তার ফুল বেগুনি বা সাদা হয় এবং প্রতিটি স্টেম শেষে একটি গজাল অসংখ্য ক্লাস্টার মধ্যে উত্পাদিত হয়।

চিয়া বীজ সাধারণত প্রায় 1 মিমি (0.039 ইঞ্চি) ব্যাসের সাথে ছোট ছোট ডিম্বাণু থাকে। তারা বাদামী, ধূসর, কালো এবং সাদা সঙ্গে mottle- রঙ্গিন হয় বীজ হাইড্রফিলিক হয়, যখন লবণাক্ত অবস্থায় 12 বার তাদের ওজন বেড়ে যায়। জলে সজীব হলে, বীজ একটি জীবাণুযুক্ত জেল মত লেপ তৈরি করে যা চিয়া-ভিত্তিক পানীয়কে একটি আলাদা আলাদা টেক্সচার দেয়।

চিয়া বীজ একবার এত মূল্যবান ছিল যে এটি মূলত দক্ষিণ পশ্চিম ও মেক্সিকোের আমেরিকান আমেরিকানদের মুদ্রায় ব্যবহৃত ছিল। এটি একটি উচ্চ শক্তি ধৈর্য খাদ্য হিসাবে বিবেচনা করা হয় এবং তাদের বিজয় হিসাবে যতদূর ফিরে Aztec যোদ্ধাদের হিসাবে ব্যবহৃত হয়। চিয়া বীজ অত্যন্ত চিটকানি হয় এবং ডায়াবেটিক্স দ্বারা চর্বিতে কার্বোহাইড্রেট রূপান্তরিত করার জন্য এটি ব্যবহৃত হয়। এটি শরীরের কোষে আরো কার্যকরীভাবে আর্দ্রতা বিতরণ নিয়ন্ত্রণ করে। চিয়া বীজ হল প্রোটিন, ডায়াবেটিস ফাইবার এবং ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিডের একটি চমৎকার উৎস এবং কোনও আলু থাকে না। চিয়া বীজ কাঁচা খাওয়া বা অঙ্কিত হতে পারে। চিয়া sprouts সালাদ এবং স্যান্ডউইচ একটি সুস্বাদু অতিরিক্ত হয়। চিয়া বীজ একটি ঘোমটা বা কেক তৈরি করার জন্য বা breads, কেক এবং বিস্কুট যোগ করার জন্য মাটিতে হতে পারে।

চিয়া তার বীজের জন্য বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত হয়, একটি খাদ্য যা ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিডের সমৃদ্ধ হয়, যেহেতু α-linolenic অ্যাসিড (ALA) সহ বীজ 25-30% নিষ্কাশনযোগ্য তেল উৎপন্ন করে। মোট চর্বি, তেলের মিশ্রণ 55% ω-3, 18% ω-6, 6% ω-9, এবং 10% চর্বিযুক্ত চর্বি হতে পারে।

চিয়া বীজ নিষ্কাশন পাউডার এর ফাংশন এবং স্বাস্থ্যকর উপকারিতা

  1. চিয়া বীজ গুঁড়ো মেসন সংশোধন করতে পারেন।
  2. চিয়া বীজ গুঁড়ো হ্রাস হ্রাস-সংক্রান্ত অসঙ্গতি জন্য ব্যবহার করা হয়।
  3. সুপার ফুড অন্য: চিয়া বীজ পাউডার একটি উচ্চ শক্তি ধৈর্য খাদ্য বিবেচনা করা হয় এবং তাদের বিজয় সময়ে এজেস্টিক যোদ্ধাদের হিসাবে যতদূর ব্যবহৃত হয়েছিল।
  4. চিয়া বীজ গুঁড়ো অত্যন্ত মচমচে এবং ডায়াবেটিস দ্বারা ব্যবহৃত হয় যাতে চর্বিতে কার্বোহাইড্রেট রূপান্তরিত হয়।
  5. চিয়া বীজ গুঁড়ো এছাড়াও শরীরের কোষে আরো দক্ষতার আর্দ্রতা বন্টন নিয়ন্ত্রণ।
  6. চিয়া বীজ গুঁড়া প্রোটিন, ডায়াবেটিস ফাইবার এবং ওমেগা 3 ফ্যাটি অ্যাসিডের একটি চমৎকার উৎস এবং কোনও গ্লুটেন নেই।

চিয়া বীজ এক্সট্র্যাকশন পাউডারের প্রয়োগ

  1. খাদ্য ক্ষেত্রে প্রয়োগ, চিয়া বীজ গুঁড়ো একটি নতুন কাঁচা মাল যা খাদ্য ও পানীয় শিল্পে ব্যবহৃত হয়ে উঠেছে।
  2. চিয়া বীজ গুঁড়ো কাঁচামাল হিসেবে স্বাস্থ্যসেবা পণ্য ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়।
  3. চিয়া বীজ গুঁড়ো ফার্মাসিউটিকাল ক্ষেত্রের মধ্যে প্রয়োগ করা হয়।

প্যাকেজ এবং সংগ্রহস্থল

  1. বাইরের ভিতরে ডবল প্লাস্টিকের ধারক / অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল ব্যাগ সঙ্গে 1-5 কেজি। ডাবল প্লাস্টিকের কন্টেনার সহ 10 কেজি ভিতরে / শক্ত কাগজ বাইরে ডাবল প্লাস্টিকের কন্টেইনারের সাথে 25 কেজি / ফাইবার ড্রাম বাইরে বা এটি আপনার বিকল্প এ।
  2. একটি শীতল এবং শুকনো শুকনো বোঁচকা পাত্রে সংরক্ষিত, আর্দ্রতা এবং দৃঢ় আলো / তাপ থেকে দূরে থাকুন
  3. শেল্ফ লাইফ: ভাল স্টোরেজ অবস্থার অধীনে দুই বছর।

তিসিবীজের নানা গুন

আমাদের দেশে সাধারণত বাদামি হলুদ রঙের তিসি বীজ বেশি পাওয়া যায় এটি উদ্ভিদ উৎস থেকে প্রাপ্ত ওমেগা ফ্যাটি অ্যাসিডের সবচেয়ে সমৃদ্ধ উৎস যা আলফা লিনোলেইক এসিড (ALA) হিসেবে পরিচিত

প্রায় ৬ হাজার বছর ধরে তিসিবীজ বা ফ্ল্যাক্স সিড খাবার হিসেবে গ্রহণ করা হয়ে আসছে এবং এটিই সম্ভবত বিশ্বে চাষ করা সবচেয়ে পুরনো এবং প্রথম সুপার ফুড।

এই তিসিবীজের উপকারিতা হচ্ছে তা ভালো হজমে সাহায্য করে, ত্বক সুন্দর করে, কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, চিনি খাবার ইচ্ছাকে কমায়, হরমোনের ভারসাম্যতা রক্ষা করে, ওজন কমাতে সাহায্য করে, ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়ে। এছাড়াও এমন আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে।

আমাদের দেশে সাধারণত বাদামি ও হলুদ রঙের তিসি বীজ বেশি পাওয়া যায়। এটি উদ্ভিদ উৎস থেকে প্রাপ্ত ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের সবচেয়ে সমৃদ্ধ উৎস যা আলফা লিনোলেইক এসিড (ALA) হিসেবে পরিচিত।

তিসিবীজের পুষ্টিগুন:
তিসিবীজের অনেক ধরনের পুষ্টি উপকারিতা রয়েছে। ১০০ গ্রাম তিসিবীজে রয়েছে:

  • ক্যালরি: ৫৩৪ কিলোক্যালরি
  • শর্করা: ২৮.৮৮ গ্রাম
  • প্রোটিন: ১৮.২৯ গ্রাম,
  • ফ্যাট: ২৭.৩ গ্রাম,
  • খাদ্য আঁশ: ৮ গ্রাম
  • থায়ামিন: ১.৬৪ মিলিগ্রাম
  • রাইবোফ্লাভিন: ০.১৬১ মিলিগ্রাম
  • ম্যাগনেশিয়াম: ৩৯২ মিলিগ্রাম
  • ফোলেট: ৬ মাইক্রোগ্রাম
  • ফসফরাস: ৬৪২ মিলিগ্রাম
  • পটাশিয়াম: ৮১৩ মিলিগ্রাম
  • জিংক: ৪.৩৪ মিলিগ্রাম
  • ম্যাংগানিজ: ০.১৭৪ মিলিগ্রাম

উপরোক্ত পুষ্টি উপাদানের পরিমান গুলো দেখেই বোঝা যায় যে তিসিবীজ কতটুকু পুষ্টিসম্পন্ন খাবার।

তিসিবীজের উপকারিতা:

  • তিসি বীজ উচ্চমাত্রার আঁশ এবং কম শর্করাযুক্ত:তিসিবীজে একধরনের জেলির মত খাদ্য আঁশ থাকে যা পানিতে দ্রবণীয় তাই এটি আভ্যন্তরীণ অঙ্গের জন্য অবিশ্বাস্য রকমের উপকারী। যা পাকস্থলীকে দ্রুত খালি করতে সাহায্য করে যার ফলে পুষ্টি উপাদান দেহে ভালো ভাবে শোষিত হতে পারে। তিসিবীজে দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় দুই ধরনের আঁশ থাকায় তা কোলনের বিষাক্ততা দূর করতে সাহায্য করে, ওজন কমাতে এবং চিনি খাবার ইচ্ছাকে কমাতে সাহায্য করে।
  • সুন্দর ত্বক চুলের জন্য:স্বাস্থ্যবান ত্বক, চুল ও নখ পেতে প্রতিদিনের পানীয়তে ২ টেবিল চামচ তিসিবীজ রাখুন বা ১ টেবিল চামচ তিসির তেল রাখুন প্রতিদিনের খাওয়াতে।তিসিবীজে থাকা ALA ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় ফ্যাট সরবরাহ করে যা ত্বকের রুক্ষতা ও শুষ্কতা দূর করতে সাহায্য করে। ত্বকের অ্যাকজিমা, ব্রনের সমস্যা দূর করে এটি। নিয়মিত এটি খেলে ত্বক এবং চুল আভ্যন্তরীণ ভাবে স্বাস্থ্যবান হয়।
  • ওজন কমাতে: তিসিবীজে থাকা স্বাস্থ্যকর ফ্যাট ও আঁশ আপনাকে অনেক্ষন পেট ভরা থাকার অনুভূতি দেয় যার ফলে কম ক্যালরি গ্রহণ করা হয় এবং ওজন কমে। ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিডের ALA অর্থাৎ আলফা লিনোলেইক এসিড শরীরের উদ্দীপ্ততা কমাতে সাহায্য করে। উদ্দীপ্ত শরীরের সব সময় প্রবণতা থাকে অতিরিক্ত ওজন ধরে রাখার। তাই ওজন কমাতে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় স্যুপ, সালাদ ও যেকোনো পানীয়ের সাথে কয়েক চা চামচ তিসিবীজ রাখুন।
  • কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে:তিসিবীজ প্রাকৃতিক ভাবে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। তিসিবীজের দ্রবণীয় আঁশ চর্বি ও কোলেস্টেরলকে হজমতন্ত্রের মাঝে এমন ভাবে আঁটকে ফেলে যে আর দেহে শোষিত হতে পারে না।
  • গ্লুটেন ফ্রি:তিসিবীজ গ্লুটেন সমৃদ্ধ খাবার গুলোর চমৎকার বিকল্প হতে পারে। কারন গ্লুটেন সমৃদ্ধ খাবার গুলো প্রদাহী অপরদিকে তিসি হচ্ছে প্রদাহবিরোধী। তাই যাদের সিলিয়াক ডিজিজ বা গ্লুটেন অ্যালার্জি রয়েছে তাদের জন্য তিসিবীজ হতে পারে চমৎকার একটি খাবার। আবার যাদের সামুদ্রিক মাছের ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিডে অ্যালার্জি রয়েছে তাদের জন্য ও চমৎকার বিকল্প হতে পারে।
  • তিসিবীজ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ:তিসিবীজ অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ। যা অ্যান্টিঅ্যাজিং, হরমোনের ভারসাম্যতা এবং কোষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় খুবই উপকারী।
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে:তিসিবীজ রক্তের শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে যার ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে।
  • হজমক্রিয়াকে উন্নত করে:তিসিবীজের সবচেয়ে বড় উপকারিতা হচ্ছে হজমক্রিয়াকে উন্নত করে। তাই কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে প্রাকৃতিকভাবে মুক্তি পেতে ১-৩ টেবিল চামচ তিসির তেল ২৫০ মিলি বা ১ কাপ গাজরের জুসের সাথে নিয়মিত গ্রহণ করলে উপকার পাওয়া যায়। এটি সর্বোচ্চ ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধও খাবার। এতে থাকে দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় খাদ্য আঁশ হজম ক্রিয়াকে উন্নত করে। ২ টেবিল চামচ তিসিবীজে রয়েছে প্রায় ৫ গ্রাম আঁশ যা আমাদের RDA বা প্রতিদিনের চাহিদার ১/৪ অংশ। তিসিবীজের আঁশ কোলনকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।
  • ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে:তিসিবীজ স্তন, প্রোস্টেট, ওভারিয়ান এবং কোলন ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে। তিসিবীজে থাকা ৩ ধরনের lignan দেহে থাকা হরমোনের প্রাকৃতিক ভারসাম্যতা বজায় রাখে যা স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। এছাড়া এই lignan এন্ডমেট্রিয়াল ও ওভারিয়ান ক্যান্সার ও প্রতিরোধ করে।
  • উচ্চ মাত্রার ওমেগা ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ: আমরা ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিডের উপকারিতার কথা কম বেশি সবাই জানি। মাছ থেকে প্রাপ্ত ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিডে eicosapentaenoic acid (EPA)এবং docosahexaenoic acid (DHA) থাকে আর তিসিবীজের ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিডে থাকে আলফা লিনোলেইক এসিড(ALA) যা আমাদের দেহে সহজে কাজ করতে পারে। এই ALA হচ্ছে একটি স্বাস্থ্যকর ফ্যাট যা আমাদের প্রতিদিনের সুষম খাবারের তালিকায় রাখা উচিত।

কোথায় পাওয়া যায়:
যদিও তিসিবীজ আমাদের দেশেও চাষ হয় কিন্তু অন্যান্য শস্যের মত এতো পরিচিত নয়। তিসি সাধারণত অর্গানিক খাবার যেসব দোকানে পাওয়া যায় সেখানে পাবেন। এছাড়া মশলার দোকানে বা বীজ যেসব দোকানে বিক্রি করে সেখানেও পেতে পারেন। এখন বিভিন্ন অনলাইন গ্রসারি শপে তিসি পাওয়া যায়। আপনারা চাইলে অনলাইনে অর্ডার করেও কিনতে পারবেন।
লেখক: জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ; এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ; খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান (স্নাতকোত্তর) (এমপিএইচ) ; মেলাক্কা সিটি, মালয়েশিয়া।

সয়াবিনের পুষ্টিগুণ

বর্তমান সময়ে বাড়ির ছোট ছেলেমেয়েদের শাকসবজি খাওয়ানো দুষ্কর ব্যাপার। কিন্তু শাকসবজি না খেলে শরীরে পুষ্টি হবে কি করে, এ ভাবনায় বাবা-মায়েরা অনেকটা দিশেহারা। তবে এ নিয়ে এখন আর চিন্তার দরকার নেই, বাচ্চাকে বেশি করে খাওয়ান সয়াবিন। তাহলেও অনেক উপকার পাওয়া যাবে। সয়াবিন খেতেও বেশ ভালো লাগে আবার এর রয়েছে যথেষ্ট পুষ্টিগুণও।

সয়াবিনে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন আছে। এছাড়াও সয়াবিনে আছে ভিটামিন কে, সি, বি-৬ ও থিয়ামিন। রয়েছে মিনারেলস, আয়রন, কপার, জিঙ্ক, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও প্রচুর ডায়টারি ফাইবার।

যা আমাদের প্রতিদিনই দরকার এবং শাকসবজির মতোই উপকারী। এবারে আসা যাক, খাবার হিসেবে সয়াবিনের প্রচলন এবং ক্রমবিকাশের প্রসঙ্গে। জানা যায়, প্রায় ৫০০০ বছর আগে সুস্বাদু বাদামের স্বাদ বিশিষ্ট সয়াবিন চীন দেশে প্রথম আবাদ শুরু হয় এবং তখন থেকেই সয়াবিন চীনা খাবারের একটা অবিচ্ছেদ্ধ অংশ। আর এর সুফল বিবেচনায় দেখা যায়, পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশ থেকে চীনাদের গড় আয়ু বেশি। তাদের বৃদ্ধ বয়সেও চুল পড়ে যায় না, তারা প্রখর বুদ্ধি সম্পন্ন এবং কঠোর পরিশ্রমী।

গবেষণায় দেখা গেছে, খাদ্য তালিকায় সয়াবিন আছে বলেই জাতিগতভাবে তারা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী। সয়াবিন ৫০০০ বছর আগে চীনে চাষ শুরু হলেও এর বিস্তার ঘটে আরো অনেক বছর পর জাপানে। এরপর কোরিয়ায়, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপিন, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, বার্মা (বর্তমান মিয়ানমার), ভারতে। এরপর আমাদের দেশেও এর আগমন ঘটে এবং কৃষি বিভাগের সহযোগিতায় চাষীরা এর আবাদে মনোনিবেশ করেন। সয়াবিন মূলত: চীন, জাপান, কোরিয়ানদের খাবার তালিকার একটা প্রধান অংশ। পশ্চিমা বিশ্বে সয়াবিনের বিশেষ গুণের কথা প্রায় অজানাই ছিল। ১৯ শতকের গোড়ার দিকে আমেরিকায় সয়াবিনের চাষ শুরু হয় মূলত: গো-খাবার হিসাবে। এরপর ১৯০৪ সালে কৃষি মন্ত্রণালয় সয়াবিনের ওপর ব্যপক গবেষণা শুরু করে। বিখ্যাত বিজ্ঞানী ডা. জি. ডব্লিউ. কারভার আবিষ্কার করেন সয়াবিনের সব অসাধারণ উপাদান, যা স্বাস্থ্য রক্ষার জন্যে অতীব জরুরি এবং এটাও প্রমাণ করে, সয়াবিন সব খাবারের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ এবং উৎকৃষ্ট মানের উদ্ভিজ খাবার এবং স্বাস্থ্যকর উদ্ভিজ তেলের আধার।
সয়াবিন দিয়ে বিভিন্ন ধরণের খাবার তৈরি হচ্ছে। যেমন- সয়াসস, সয়াময়দা, সয়াদুধ, সয়াদই, সয়াপনির ইত্যাদি। এখনও এর উপর গবেষণা চলছে এবং এর সমাদর দিন দিন বেড়েই চলেছে। কিন্তু প্রচার, প্রচারণার অভাবে বাংলাদেশে এখনো এর উপকারিতা এবং ব্যবহারিক পদ্ধতি সাধারণ মানুষের কাছে অজানা রয়ে গেছে। এই সয়াবিন গরীব জনসাধারণের জন্যে সাশ্রয়ী মূল্যের প্রোটিন। তবে আশার খবর হলো, বর্তমানে নোয়াখালীর ভাটি অঞ্চলে (লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর) কিছু কিছু চাষ শুরু হয়েছে এবং স্থানীয় বাজারেও পাওয়া যাচ্ছে সয়াবিন।
সয়াবিনের নানা পুষ্টিগুণ এবং উপকারিতার বিষয় তুলে ধরা হচ্ছে এবারে।
ওজন বাড়ায় ঃ

যাদের ওজন প্রয়োজনের তুলনায় কম, খুব রোগা শরীর তারা সয়াবিন খেতে পারেন। সয়াবিন স্বাস্থ্যকরভাবে ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। ফলে, শরীরের কোনো ক্ষতি হয়না। সয়াবিনে আছে ফাইবার আর প্রচুর প্রোটিন, যা শরীরে পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে ওজন বাড়ায়। অন্যদিকে এটি ওবেসিটির মতো সমস্যাও দূর করে।
ঘুমের সমস্যায় ঃ

ঘুমের সমস্যা? তাহলে বেশি করে খান সয়াবিন। ঘুমের সমস্যার সমাধান করে সয়াবিন। সয়াবিনে আছে ম্যাগনেসিয়াম। যা ঘুমের জন্য একটি প্রয়োজনীয় মিনারেল। এটি সহজে ঘুম না আসা, পাতলা ঘুম এসব সমস্যার ক্ষেত্রে ভালো কাজ করে। ভালোভাবে ঘুমোতে সাহায্য করে।
হাড়ের সমস্যায় ঃ

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাড়ের ঘনত্ব কমতে থাকে। ফলে হাড়ের জোড় কমে আসে। ফলে হাড়ের বিভিন্ন অসুখ দেখা যায়। হাঁটার শক্তি কমে যায়। আর মহিলারা যারা বেশি এই সমস্যায় ভোগেন। তাদের হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য বেশি করে সয়াবিন খাওয়া জরুরি।
হজম সমস্যায় ঃ

শরীর ভালো রাখতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিনের প্রয়োজন। কারণ শরীরে উপযুক্ত পরিমাণ প্রোটিন উপস্থিত থাকলে তবেই হজম প্রক্রিয়া ভালোভাবে সম্পন্ন হতে পারে। প্রোটিন কোষ এবং ধমণীর যতেœ এবং রক্ষার্থে উপযুক্ত ভূমিকা পালন করে থাকে সয়াবিন। এই প্রাকৃতিক উপাদানটির মধ্যে উপস্থিত প্রোটিন, কোষ তৈরি হতে এবং তাকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। যারা মূলত, নিরামিষাশী, তাঁদের শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি দেখা যায়। সেই ঘাটতিকে পূরণ করতে হলে পরিমিত হারে সয়াবিন খাওয়া উচিত।
ক্যান্সার রোধে ঃ

সয়াবিন বেশ কিছু ধরণের ক্যান্সার রোধ করতে সাহায্য করে। কারণ, সয়াবিনের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে এন্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। এই এন্টি-অক্সিডেন্ট শরীরে উপস্থিত ক্ষতিকারক ফ্রি র‌্যাডিকালগুলিকে দুর্বল করতে সাহায্য করে। ফলে, আমাদের শরীরে কোনো ক্ষতিকারক কোষ গঠন হতে পারে না। এছাড়াও, সয়াবিনের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে স্বাস্থ্যকর ফাইবার থাকায়, কোলোস্টোরেলের সম্ভাবনা এবং কোলোন ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে না।
হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে ঃ

সয়াবিনের মধ্যে বেশ কিছু পরিমাণে ফ্যাট উপস্থিত থাকে, যদিও, এই ফ্যাট শরীরের কোনোরকম ক্ষতি করে না। সয়াবিনে যে ধরণের ফ্যাট উপস্থিত থাকে, তা কোলেস্টোরেল কমাতে সাহায্য করে। ফলে, হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়া বা স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়। মনে রাখতে হবে, আমাদের শরীরের যতেœ বেশ কিছু ফ্যাটি এসিডের গুরুত্ব আছে। নিয়মত পরিমিত হারে এমন ধরণের খাবার গ্রহণ করা উচিত, যাতে এই ফ্যাটি এসিডগুলি আমরা গ্রহণ করতে পারি। তেমনই দুটি ফ্যাটি এসিড হল, লিনোলিক এসিড এবং লিনোলেনিক এসিড, যা পরিমিত হারে সয়াবিনের মধ্যে উপস্থিত থাকে। এতে মাংসপেশীর কাজ দৃঢ় হয়। এছাড়াও রক্তচাপ বজায় রাখতে এই ফ্যাটি এসিডগুলির ভূমিকা অনস্বীকার্য।
ঋতু¯্রাবের সমস্যায় ঃ

সয়াবিনের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে আইসোফ্ল্যাবোনস থাকে, যা নারীদের জননতন্ত্রের সার্বিক উন্নতি ঘটায়। মনে রাখতে হবে, ঋতুস্রাব চলাকালীন, নারীদের ইস্ট্রোজেন লেভেল অনেক কমে যায়। ঠিক এই সময়, আইসোফ্ল্যাবোনস ইস্ট্রোজেনের মাত্রা ধরে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও ঋতু¯্রাবের আগে এবং চলাকালীন স্বভাবে কিছু পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। যেমন হঠাৎ করে মুড বদলে যাওয়া, প্রচুর খিদে পাওয়া ইত্যাদি। এগুলিকে খুব সহজেই দূর করতে পারে আইসোফ্ল্যাবোনস। তাই, মেয়েদের জন্য খুবই উপকারী একটি খাদ্য হল সয়াবিন।
ফাইবারের ঘাটতিতে ঃ

ঠিকঠাকভাবে খাবার হজম হতে আমাদের প্রচুরভাবে সাহায্য করে ফাইবার। ফাইবারের মূল কাজ হলো, আমরা যে খাবার গ্রহণ করি, তার অপ্রয়োজনীয় অংশগুলিকে একত্রিত করে মল গঠন করা এবং কোনো সমস্যা ছাড়াই তাকে শরীরের বাইরে বের করে আনা। এছাড়াও ফাইবার খুব সহজে খাবার হজম হতেও সাহায্য করে। যারা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভোগেন, তাঁদের জন্য ফাইবার খুবই উপকারি। তাই পরিমিত হারে সয়াবিন খাওয়া প্রায় সবারই উচিত।
জন্মগত নানা সমস্যায় ঃ

সয়াবিনের মধ্যে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স উপস্থিত থাকে অনেক পরিমাণে। এছাড়াও, সয়াবিনের মধ্যে ফলিক এসিড উপস্থিত থাকায় এটি গর্ভবতী নারীদের ক্ষেত্রে খুবই উপকারী। ফলিক এসিড গর্ভে থাকা ভ্রূণকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ফলে সুস্থ শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার সম্ভাবনা বাড়তে থাকে।
রক্ত সঞ্চালনে ঃ

সয়াবিনে কপার এবং আইরন থাকে, যা রক্ত সঞ্চালন এবং লোহিত রক্তকণিকার গঠনে সাহায্য করে। ফলে আমাদের প্রতিটি অঙ্গ প্রত্যঙ্গে ভালোভাবে রক্ত এবং অক্সিজেন চলাচল করতে পারে। এতে হজম প্রক্রিয়ার উন্নতি ঘটে এবং এনার্জি বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে সয়াবিন রক্তাল্পতা আশংকাও দূর করে।
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে ঃ

পৃথিবীর বহু মানুষই ডায়াবেটিসের দ্বারা আক্রান্ত। যদিও এই সমস্যা সমাধানে সয়াবিনের জুড়ি মেলা ভার। কারণ, সয়াবিন আমাদের শরীরের ভেতর প্রয়োজনীয় মাত্রায় ইনসুলিন তৈরি করতে পারে। ফলে, ডায়াবেটিসের একদম প্রাথমিক পর্যায়ে এটি দারুণভাবে কাজ করে। -সূত্র ঃ অনলাইন।

Amaranth grain or Ramana/নটে বীজ

Food

Amaranth has been cultivated as a grain for 8,000 years. Amaranth is classified as a pseudocereal; it is grown for its edible starchy seeds like cereals, but it is not from the same family as cereals such as wheat and rice. Wikipedia

Nutrition Facts

Amaranth grain, cooked

Amount Per            100 grams

Calories                  103% Daily Value*

Total Fat                1.6           2%

Sodium                   6 mg        0%

Potassium              135 mg     3%

Total Carbohydrate 19 g         6%

Dietary fiber            2.1 g        8%

Protein                     3.8 g       7%

Calcium   4%           Iron          11%

Vitamin B-6            5%           Magnesium             16%

*Per cent Daily Values are based on a 2,000 calorie diet. Your daily values may be higher or lower depending on your calorie needs.

Amaranth, uncooked Nutritional value per 100 g (3.5 oz)

Energy     1,554 kJ (371 kcal)

Carbohydrates         65 g

Sugars                     1.7 g

Dietary fiber            7 g

Fat                          7 g

Protein                    14 g

Vitamins

Thiamine (B1)         (9%)            0.1 mg

Riboflavin (B2)        (17%)          0.2 mg

Niacin (B3)              (6%)0.9 mg

Pantothenic acid (B5) (30%)      1.5 mg

Vitamin B6              (46%)          0.6 mg

Folate (B9)              (21%)            82 μg

Minerals

Calcium                    (16%)        159 mg

Iron                           (58%)         7.6 mg

Magnesium              (70%)        248 mg

Manganese              (162%)       3.4 mg

Phosphorus              (80%)        557 mg

Potassium                (11%)        508 mg

Zinc         (31%)2.9 mg

Other constituents

Water      11 g

Units

μg = micrograms • mg = milligrams

IU = International units

Percentages are roughly approximated using US recommendations for adults.

Amaranth, cooked Nutritional value per 100 g (3.5 oz)

Energy     429 kJ (103 kcal)

Carbohydrates        19 g

Dietary fiber            2 g

Fat  2 g                    Protein 4 g

Vitamins

Thiamine (B1)         (2%) 0.02 mg

Riboflavin (B2)        (2%) 0.02 mg

Niacin (B3)              (2%) 0.24 mg

Vitamin B6              (8%) 0.1 mg

Folate (B9)              (6%) 22 μg

Minerals

Calcium                   (5%) 47 mg

Iron                          (16%)2.1 mg

Magnesium             (18%)65 mg

Manganese             (43%)0.9 mg

Phosphorus             (21%)148 mg

Potassium               (3%)135 mg

Zinc                         (9%)0.9 mg

Other constituents

Water      75 g

Units

μg = micrograms • mg = milligrams

IU = International units

Percentages are roughly approximated using US recommendations for adults.

Amaranth has been cultivated as a grain for 8,000 years.[1] Amaranth is classified as a pseudocereal; it is grown for its edible starchy seeds like cereals, but it is not from the same family as cereals such as wheat and rice.[2]

The yield of grain amaranth is comparable to rice or maize. It was a staple food of the Aztecs and an integral part of Aztec religious ceremonies. The cultivation of amaranth was banned by the conquistadores upon their conquest of the Aztec nation. However, the plant has grown as a weed since then, so its genetic base has been largely maintained. Research on grain amaranth began in the United States in the 1970s. By the end of the 1970s, a few thousand acres were being cultivated.[3] Much of the grain currently grown is sold in health food shops.

Grain amaranth is also grown as a food crop in limited amounts in Mexico, where it is used to make a candy called alegría (Spanish for joy) at festival times. Amaranth species that are still used as a grain are Amaranthus caudatus L., Amaranthus cruentus L., and Amaranthus hypochondriacus L. The grain is popped and mixed with honey.

Amaranth grain can also be used to extract amaranth oil – a pressed seed oil with commercial uses.

Contents

1 Nutritional analysis

2 Cultivation

3 Cultural uses

4 See also

5 References

Nutritional analysis

Raw amaranth grain is inedible to humans and cannot be digested because it blocks the absorption of nutrients.[4] Thus it has to be prepared and cooked like other grains. In a 100 gram amount, cooked amaranth provides 103 Calories and is a moderate–rich source of dietary minerals, including phosphorus, manganese, and iron. Cooked amaranth is 75% water, 19% carbohydrates, 4% protein, and 2% fat (table).[5][6]

According to Educational Concerns For Hunger Organization (ECHO), amaranth contains anti-nutritional factors, including oxalates, nitrates, saponins, and phenolic compounds.[1] Cooking methods such as boiling amaranth in water and then discarding the water may reduce toxic effects.

Amaranth grain is high in protein and lysine, an amino acid found in low quantities in other grains.[7][8] Amaranth grain is deficient in essential amino acids such as leucine and threonine[9][10] – both of which are present in wheat germ.[11][12] Amaranth grain is free of gluten, which makes it a viable grain for people with gluten intolerance.

Synopsis[6] ~ composition:    Amaranth[13]         Wheat[14]              Rice[15] Sweetcorn[16]        Potato[17]

Component (per 100g portion)               Amount   Amount   Amount   Amount   Amount

water (g)                 11            13            12            76            82

energy (kJ)              1554        1368        1527        360          288

energy (kcal)           371          327          365          86            69

protein (g)               14            13            7              3              1.7

fat (g)      7              2              1              1              0.1

carbohydrates (g)   65            71            79            19            16

fiber (g)   7              12            1              3              2.4

sugars (g)                1.7           <0.1         >0.1         3              1.2

iron (mg)                 7.6           3              0.8           0.5           0.5

manganese (mg)    3.4           4              1.1           0.2           0.1

calcium (mg)          159          29            28            2              9

magnesium (mg)    248          126          25            37            21

phosphorus (mg)    557          288          115          89            62

potassium (mg)      508          363          115          270          407

zinc (mg)                 2.9           2.6           1.1           0.5           0.3

pantothenic acid (mg)            1.5           0.9           1.0           0.7           0.3

vitB6 (mg)               0.6           0.3           0.2           0.1           0.2

folate (µg)              82            38            8              42            18

thiamin (mg)          0.1           0.3           0.1           0.2           0.1

riboflavin (mg)        0.2           0.1           >0.1         0.1           >0.1

niacin (mg)             0.9           5.4           1.6           1.8           1.1

The table below presents nutritional values of cooked, edible form of amaranth grain to cooked, edible form of wheat grain.

Synopsis[6] ~ composition:    Amaranth grain, cooked[18] Cereals, whole wheat, cooked[19]

Component (per 100g portion)               Amount   Amount

water (g)                 75            83

energy (kJ)              429          259

water (g) 75 83
energy (kJ) 429 259
protein (g) 4 2
fat (g) 2 0.4
carbohydrates (g) 19 14
fiber (g) 2 2
sugars (g) n/a n/a
iron (mg) 2.1 0.6
manganese (mg) 0.85 0.85
calcium (mg) 47 7
magnesium (mg) 65 22
phosphorus (mg) 148 69
potassium (mg) 135 71
zinc (mg) 0.9 0.5
pantothenic acid (mg) <0.1 n/a
vitB6 (mg) 0.11 0.07
folate (µg) 22 14
thiamin (mg) <0.1 0.07
riboflavin (mg) 0.02 0.05
niacin (mg) 0.24 0.8

Benefits Of Amaranth: 14 Reasons To Get Into This Grain

It’s getting hard to keep track of the super grains, we know, but we promise, amaranth is worth learning about. This tiny-but-powerful food has some similarities to quinoa — both are good protein sources and are naturally gluten-free — but it also boasts some impressive nutritional stats of its own.

You’ll start seeing it pop up in processed foods like granola bars, but it’s also great to eat on its own, and can be prepared a few different ways. There’s a reason (actually, by our count at least 14 of them) that it’s been around for millennia! Read on to find out more about amaranth.

14 Reasons To Eat Amaranth

  1. It Was An Aztec Staple: Amaranth was a key part of the diets of the pre-Columbian Aztecs, and it was used not just for food but also as part of their religious ceremonies. Sadly, when Cortez and the Spanish conquistadors arrived in the 16th century, amaranth crops were burned and its use forbidden. Fortunately, the plant was never quite eliminated.
  2. It’s Actually A Seed: Like quinoa, amaranth is not technically a grain but is the seed of the amaranth plant. One plant can produce up to 60,000 seeds.
  3. Amaranth Is Gluten-Free: Amaranth doesn’t contain any gluten, which makes it a great choice for people who are celiac or gluten intolerant and an excellent way to boost the nutritional power of gluten-free recipes.
  4. It Contains Lysine: Most grains like wheat are short on lysine, an amino acid, but that’s not the case for amaranth. This makes amaranth a complete protein, because it contains all the essential amino acids.
  5. Amaranth Contains Protein: Amaranth’s protein content is about 13 percent, or 26 grams per cup, which is much higher than for most other grains. To compare, a cup of long-grain white rice has just 13 grams of protein.
  6. The Plant Is Hardy: Amaranth prefers a high elevation, but can grow at almost any elevation in temperate climates if it has moist, loose soil with good drainage. It can also survive in low-water conditions once the plants have been established.
  7. You Can Eat Other Parts Of The Plant: Amaranth seeds may be the best-known part of the plant, which has more than 60 different species, but the leaves are also edible. They’re commonly used in Asian and Caribbean cuisines — try them stir-fried or chopped and added to soup.
  8. It’s A Source Of Key Vitamins And Minerals: Amaranth contains calcium, magnesium, potassium, phosphorus, and iron. One cup of uncooked amaranth has 31 percent of the RDA for calcium, 14 percent for vitamin C, and a whopping 82 percent for iron.
  9. Humans Have Eaten It For Millennia: It’s estimated that amaranth was first domesticated 6,000 to 8,000 years ago, which means we’ve been eating it for a very long time. Considering how easily and quickly it grows, that makes sense!
  10. Amaranth Can Be Popped: Popped amaranth is used in Mexico as a topping for toast, among other things. It looks like tiny popcorn kernels and has a nutty taste, and you can even do it yourself at home.
  11. It Grows Around The World: Though amaranth is considered a native plant of Peru, it is now grown around the world in countries including China, Russia, Thailand, Nigeria, and Mexico. It has also become a part of the cuisines of parts of India, Nepal, and the African continent. There are even farmers growing it in parts of the United States, including Nebraska and North Dakota.
  12. Amaranth Is Good For Your Heart: Several studies have shown that amaranth could have cholesterol-lowering potential. For example, in 1996 an American study found that the oil found in amaranth could lower total and LDL cholesterol in chickens. Another published in 2003, out of Guelph, showed that amaranth has phytosterols, which have cholesterol-cutting properties.
  13. It’s A Great Breakfast Option: Amaranth’s tiny grains take on a porridge-like texture when cooked, making it a great option for your first meal of the day, like this recipe from Jeannette’s Healthy Living. In fact, amaranth porridge is a traditional breakfast in India, Peru, Mexico, and Nepal.
  14. And It Can Help Keep You Regular: Among its other impressive nutritional stats, amaranth is also a source of fibre with 13 grams of dietary fibre per uncooked cup compared to just 2 grams for the same amount of long-grain white rice.

About 12,500,000 results (0.48 seconds)

Sunflower seed

The sunflower seed is the fruit of the sunflower. There are three types of commonly used sunflower seeds: linoleic, high oleic, and NuSun developed for sunflower oil. Wikipedia

Nutrition Facts

Sunflower seeds, dried

Amount Per
100 grams
Calories 584
% Daily Value*
Total Fat 51 g 78%
Saturated fat 4.5 g 22%
Polyunsaturated fat 23 g
Monounsaturated fat 19 g
Cholesterol 0 mg 0%
Sodium 9 mg 0%
Potassium 645 mg 18%
Total Carbohydrate 20 g 6%
Dietary fiber 9 g 36%
Sugar 2.6 g
Protein 21 g 42%
Vitamin A 1% Vitamin C 2%
Calcium 7% Iron 29%
Vitamin D 0% Vitamin B-6 65%
Vitamin B-12 0% Magnesium 81%
*Per cent Daily Values are based on a 2,000 calorie diet. Your daily values may be higher or lower depending on your calorie needs.

Amazing Benefits Of Sunflower Seeds (Surajmukhi Ke Beej) For Skin, Hair, And Health

Did you know that munching on some sunflower seeds, also known as ‘surajmukhi ke beej‘ in Hindi can offer incredible health benefits? Sunflower seeds are actually considered good for health because of its nutritional value. Find out how here. These sweet and nutty sunflower seeds are increasingly gaining popularity as snacks as they are so filling. Their mild nutty taste makes them a filling as well as nutritious food. These seeds are highly nutritious comprising of calories, essential fatty acids, vitamins, and minerals.

Sunflower seeds are obtained from the big round center of the sunflower which turns throughout the day to follow the course of the sun. This bright yellow center of the sunflower produces grayish-green or black seeds encased in tear-dropped shaped gaey or black shells often having black and white stripes. They are generally three types of sunflower seeds namely linoleic, highly oleic, and NuSun. These have been categorized on the basis of their levels of monounsaturated, saturated, and polyunsaturated fats.

Now let’s check out the health benefits of sunflower seeds:

Sunflower Seeds: Health Benefits

  1. Cardiovascular Health

Sunflower seeds are a great source of vitamin C, which helps in preventing cardiovascular disease. Being an antioxidant, vitamin E prevents free radicals from oxidizing cholesterol. On oxidation, cholesterol sticks to the blood vessel walls and causes atherosclerosis, leading to blocked arteries, heart attack or stroke. A quarter cup of sunflower seeds provides over ninety percent of the daily value of vitamin E.

  1. Lowers Cholesterol

Sunflowers seeds have been ranked at the top of the nuts and seeds list for their high content of phytosterols or cholesterol lowering compounds. These seeds are loaded with monounsaturated and polyunsaturated fats, which are good fats that lower bad cholesterol. Besides, they are rich in fiber that contributes to lowering cholesterol in some people.

  1. Supports Digestion

Due to their high content of dietary fiber, raw seeds of sunflower can aid in digesting food and even cure constipation.

  1. Prevents Cancer

Sunflower seeds have a high content of vitamin E, selenium, and copper that have antioxidant properties. As per research, these antioxidants prevent cellular damage that often leads to cancer. These nutrients prevent cancer by reducing and suppressing cellular damage from oxidants and protecting tissue from oxidant free radical damage. Sunflower seeds can reduce the risk of certain types of cancer due to their high phytosterol content. They also contain a compound called lignans, which also protects against certain types of cancer. These naturally occurring compounds can inhibit the growth of cancer cells, thus preventing colon, prostate and breast cancer.

  1. Bone Health

Sunflower seeds are rich in magnesium which is also necessary for strong bones besides calcium. Most of the magnesium in the body is present in our bones and helps lend bones their physical structure while the rest is located on the surface of the bones where it is stored for the body to be used according to requirement. These seeds also contain copper which is vital for the function of enzymes involved in cross-linking collagen and elastin, thus providing strength and flexibility in bones and joints. Vitamin E is effective in reducing arthritis symptoms due to its anti-inflammatory properties.

  1. Beneficial For The Nerves

Magnesium in sunflower seeds keeps our nerves relaxed by preventing calcium from rushing into the nerve cells and activating them, thereby relaxing our blood vessels and muscles too. Too little magnesium results in too much calcium gaining entrance to the nerve cells, causing it to send too many messages and leading to too much contraction.

  1. Mental Health

Sunflower seeds have a positive effect on your mood by lessening the chances of depression. They contain tryptophan, an essential amino acid that helps produce serotonin, an important neurotransmitter. When serotonin is released in our bodies, it relieves tension, calms the brain and promotes relaxation. Choline, a compound found in sunflower seeds helps in improving memory and cognitive function. Magnesium helps diminish the frequency of migraine attacks, lowers blood pressure and prevents heart attack, soreness, and fatigue. Sunflower seeds also have high amounts of potassium which helps to counterbalance the effect of sodium in your blood and lowers blood pressure, thus reducing the risk of developing hypertension.

  1. Anti-inflammatory Properties

Vitamin E in sunflower seeds is the body’s primary fat-soluble antioxidant. This vitamin travels throughout the body neutralizing free radicals that would otherwise damage fat-containing structures and molecules like cell membranes, brain cells, and cholesterol. Thus, vitamin E exhibits significant anti-inflammatory effects, resulting in the reduction of diseases caused by free radicals and inflammation such as asthma, osteoarthritis, and rheumatoid arthritis.

  1. Source Of Antioxidants

Sunflower seeds are rich in antioxidants such as selenium and vitamin E. These antioxidants prevent or limit oxidative damage to your cells, thus protecting you from chronic diseases such as cardiovascular disease, diabetes, and cancer.

  1. Delicious Nutty Flavor

Sunflower seeds have a crunchy, nutty taste that makes them delectable (1). Include them in your daily diet of granola, salads and stir-fries. You can also add them to yogurt, rice, pasta, sandwiches or mix it into the bread dough.

  1. Stress Buster

Sunflower seeds contain copious amounts of magnesium that soothes the nerves, and eases stress and migraines, thereby relaxing your mind (2). The seeds also contain tryptophan and choline that help in combating anxiety and depression. Choline improves brain function and boosts memory.

  1. Prevents Free Radical Damage

Sunflower seeds are packed with vitamin E (tocopherol). It is a fat-soluble antioxidant that neutralizes cancer-causing free radicals and prevents them from damaging brain cells, cell membranes, and cholesterol. It also helps to maintain blood circulation and production of red blood cells (RBCs) (3).

  1. Promotes Cell Formation

Sunflower is a good source of folic acid (folates). The vitamin is essential for the production of new DNA, which is needed for the formation of new cells (4). Folates constitute an important part of the diet of pregnant women as it promotes healthy neural tube formation, adequate birth weight and proper development of the face, heart, spine and brain of the babies. Hence, sunflower seeds, sprouts, and oil are considered highly beneficial for pregnant women.

  1. Controls High Blood Pressure

Sunflower seeds and sprouts can give a boost to your antioxidant capacity since they have rich amounts of vitamin E. This vitamin works in tandem with vitamin C and selenium to reduce high blood pressure (5).

  1. Chest Congestion

The sunflower seeds and sprouts are a natural remedy to get relief from chest congestion. In Ayurveda, these sprouts are thought to have the ability to encourage clearance of the lungs.This natural expectorant acts as a preventive measure against lower respiratory infections to deter the invasion of pathogens (6).

  1. Prevents Osteoporosis

Sunflower seed sprouts are the best vegetarian source of protein. Protein helps in repairing the muscle tissue and aids in various enzymatic functions of the body. Protein is also essential for bone development and thus, prevents osteoporosis. This helps in the proper development of bone matrix and also supports bone strength, all your life. Sunflower seeds can be a good alternative to meat, beef or pork proteins for strict vegetarians (7).

  1. Potassium For Fluid Balance

Sunflower seeds are extremely rich in potassium (8). They help to meet the daily requirement of potassium i.e. 4,700 mg of potassium per day easily. Potassium is also useful to balance the effects of sodium in fluid balance and in lowering blood pressure and reducing the risk of hypertension.

Magnesium in sunflower benefits your nerves by preventing calcium from entering the nerve cells and activating them. They act as nerves, blood vessels, and muscle relaxant. Adding sunflower seeds to your daily diet can get rid of migraine headaches, soreness, high blood pressure, muscle tension, and fatigue. They can also be useful in lowering the frequency of migraines and heart attacks.

Sunflower seeds also contain tryptophan (amino acid) that produces serotonin, a neurotransmitter, which is responsible for relieving tension, calming the brain and promoting relaxation.

  1. Lowers Risk Of Infection In Infants

Sunflower seed lowers the risk of infection in infants and prevents disorders like premature deliveries and low birth weight. Preterm babies are at a higher risk of infection due to their under-developed organs and skin which act a protective barrier (9).

  1. Anti-Cancer Properties

Sunflower seeds contain a good amount of selenium proven to fight cancer. Selenium boosts DNA repair and prevents multiplying of cancer cells. This mineral provides protection against cancers of skin, bladder, colon, and prostate. Sunflower oil is also rich in carotenoids which help in controlling cell damage and thus averts the risk of developing cancer of the lung, uterus, and skin (10).

  1. Prevents Arthritis

Worried about arthritis? Switch to sunflower oil to reduce the symptoms of arthritis. Sunflower oil has shown conclusive results to cure and prevent rheumatoid arthritis (11).

  1. Prevents Asthma

Sunflower oil helps to prevent asthma and related symptoms like blocked nose, cold and cough (12).

  1. Healthy Digestive System

Sunflower oil is a rich source of B-vitamins. These vitamins are essential for a healthy digestive system and production of energy (13).

  1. Cataract

Carotenoids-rich sunflower oil helps in the prevention of cataracts. The oil is also a good source of vitamin A which promotes eye health. Try to include other vitamin A rich foods too (14).

  1. Healthy Immune System

Zinc is another essential nutrient required by the body. Sunflower oil contains good amounts of zinc, and it helps maintain a healthy immune system. Zinc is also helpful in the healing of wounds and to maintain the sense of smell and taste.Vitamin E in sunflowers is also helpful in improving the immune system (15).

  1. Thiamine For Energy

The seeds of sunflower contain thiamin (vitamin B1). It stimulates cell catalysts or enzymes for chemical reactions, and is required by the body to derive energy from food (16).
Sunflowers are also a good source of copper that helps in production of energy at the cellular level.

Sunflower: Skin Benefits

Adequate nutrition is a prerequisite for healthy skin. As stated earlier, sunflower seeds are rich in vitamin E, which protects your skin from oxidative (cell) damage and supports healthy skin growth. Some of its skin benefits are as follows.

  1. Skin Protection And Maintenance

Sunflower seeds also contain copper which is vital for maintaining healthy skin. Copper is utilized by our body to produce melanin, the pigment which is responsible for giving your skin its color. The minute particles of this protein pigment protect your skin from damage by ultraviolet radiation.

  1. Anti-Aging Benefits

Sunflower seeds contain certain nutrients which contribute to the health and vitality of the skin. Vitamin E is one of those which help in preventing the skin from free radical damage as well as sun damage. It also prevents scarring and appearance of wrinkles. The seeds also contain beta-carotene which makes your skin less sensitive to the sun. The various other antioxidants in sunflower seeds protect your skin from environmental damage, thus preventing signs of aging.

  1. Combats Acne And Other Skin Problems

Sunflower seed oil is a good source of essential fatty acids such as linoleic, oleic, palmitic and stearic acids which encourage the formation of collagen and elastin, thus making your skin soft and smooth. The fatty acids have anti-bacterial properties which protect your skin from bacteria, thus lowering the occurrence of acne. According to research, sunflower seed oil may help protect the skin of infants born prematurely by reducing the risks of skin infection and disease. It is also believed that sunflower oil can soothe dermatitis and eczema.

  1. Great Moisturizer

Sunflower seed oil acts as a great moisturizer, helping your skin to retain most of that moisture and providing a strong barrier. Its moisturizing qualities can be attributed to the presence of linoleic acid.

  1. Glowing Skin

Sunflower seeds are a rich source of vitamin E. This vitamin helps protect your skin from harmful UV rays and give a glowing and youthful looking skin (17).

Sunflower: Hair Benefits

Sunflower seeds contain vital vitamins and minerals which are needed for healthy hair such as protein, selenium, vitamin E and B vitamins.

  1. Stimulates Hair Growth

Zinc contained in sunflower seed promotes hair growth. However, excess consumption of zinc can lead to hair loss. Vitamin E also stimulates hair growth by increasing blood circulation to the scalp. It should also be consumed in moderation as too much of it can cause hair loss.

  1. Prevents Hair Loss

Sunflower seeds also contain vitamin B6 (pyridoxine) which is not only crucial for the absorption of zinc but also has some hair loss preventing properties. These properties can be attributed to the ability of vitamin B6 to boost oxygen supply to the scalp. They are also best dietary sources of copper which is involved in melanin formation. This pigment is responsible for imparting color to your hair.

  1. Moisturizes Your Hair

Sunflower seed oil is an inexpensive natural moisturizer for hair. It contains omega 6 fatty acids which help prevent thinning hair.

  1. Prevents Graying Of Hair

Sunflowers are a good source of copper. This mineral is responsible for imparting color to your hair, and its deficiency is one of the leading causes of graying of hair. The rich presence of copper in sunflowers helps in maintaining the color and luster of hair.

Sunflower Seeds: Nutritional Value

Sunflower seeds are a nutrient rich food comprising of vitamins E and B and minerals like selenium, magnesium, iron, phosphorus, calcium, and zinc as well as protein and heart-healthy fats. Its nutritional profile is explained below.
See the table below for in depth analysis of nutrients:

Principle Nutrient Value Percentage of RDA
Energy 584 Kcal 29%
Carbohydrates 20 g 15%
Protein 20.78 g 37%
Total Fat 51.46 g 172%
Cholesterol 0 mg 0%
Dietary Fiber 8.6 g 23%
Vitamins
Folates 227 µg 57%
Niacin 8.335 mg 52%
Pantothenic acid 1.130 mg 22%
Pyridoxine 1.345 mg 103%
Riboflavin 0.355 mg 27%
Thiamin 1.480 mg 123%
Vitamin A 50 IU 1.6%
Vitamin C 1.4 2%
Vitamin E 35.17 mg 234%
Electrolytes
Sodium 9 mg 1%
Potassium 645 mg 14%
Minerals
Calcium 78 mg 8%
Copper 1.800 mg 200%
Iron 5.25 mg 63%
Magnesium 325 mg 81%
Manganese 1.950 mg 85%
Phosphorus 660 mg 94%
Selenium 53 µg 96%
Zinc 5.00 mg 45%
Phyto-nutrients
Carotene-ß 30 µg
Crypto-xanthin-ß 0 µg
Lutein-zeaxanthin 0 µg
  • Vitamin E: Sunflower seeds are one of the best sources of vitamin E. An ounce of sunflower seeds contain 10 mg of vitamin E which is 35% of a person’s recommended daily requirement. This nutrient helps in blood circulation and formation of red blood cells (RBCs).
  • Vitamin B1: Sunflower seeds are also a good source of vitamin B1 or thiamine. An ounce of hulled sunflower seeds provides 0.4 milligrams of this nutrient. The recommended daily requirement of vitamin B1 is 1.2 milligrams and 1.1 milligrams for men and women respectively.
  • Calories and Fat: Sunflower seeds are rich in heart-healthy fat with nearly 80% of their calories coming from fat. They mostly contain polyunsaturated and monounsaturated fats which provide about 160 calories per ounce serving.
  • Protein and Fiber: Sunflower seeds are also high in protein. A 3.5 ounce serving of these seeds contains 22.78 grams of protein. They are also a good source of fiber providing about 10.5 grams per 3.5 ounce serving.
  • Copper: Sunflower seeds are beneficial for your hair and skin due to their copper content. An ounce of sunflower seeds provides 512 micrograms of copper which is more than 50% of the recommended requirement of 900 micrograms.
  • Potassium: Sunflower seeds are also a good source of potassium with a quarter cup serving providing 226 milligrams of this mineral.
  • Zinc: They are also a good source of zinc. Proper intake of this mineral is important for male fertility. A quarter cup serving of sunflower seeds contains 1.75 milligrams of zinc. The recommended daily requirement is 11 mg for men.

So start finding ways to include sunflower seeds in your daily diet regimen. Aside from eating seeds in raw form, you can also mix an ounce of the seeds in your cold or hot beverage or sprinkle them over salads and other food servings Stay healthy, stay happy!!

Leave a Reply

Categories

%d bloggers like this: